ল্যাপটপের যত্ন ও দীর্ঘদিন ব্যবহার করার টিপস

আধুনিক জীবন যাত্রায় কম্পিউটার এখন নিত্য সঙ্গী। সময়ের সাথে পাল্লা দিয়েই বাড়ছে ল্যাপটপের ব্যবহার। এখন কেবল তরুণ প্রজন্ম নয়, সব বয়সের মানুষের মাঝেই ল্যাপটপ ভীষণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ল্যাপটপ জনপ্রিয় তার বাহারি চেহারা, ব্যবহারের নানান আধুনিকতা, আকার ও বহনের সুবিধার জন্য। শুধু ল্যাপটপ কিনে ব্যবহার করলেই তো হয় না, এর সাথে সাথে নিয়মিতভাবে ল্যাপটপের যত্ন নিতে হয় তবেই ল্যাপটপ দীর্ঘদিন ব্যবহার করা যায়। অনেক ক্ষেত্রে ডেক্সটপ কম্পিউটারের চাইতে বেশী যত্নের প্রয়োজন হয় ল্যাপটপ নামের এই ছোট যন্ত্রটির। ল্যাপটপ কি করে দীর্ঘদিন যত্নের সাথে ব্যবহার করা সম্ভব এবং এর কার্যকারিতা কেমন করে বাড়ানো যায় সেই সম্পর্কে চলুন চটজলদি কিছু টিপস জেনে নেয়া যাক।

– অবশ্যই ভালো একটি অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করবেন।

– ব্যাটারিতে ল্যাপটপ চালানোর সময় স্ক্রিনের ব্রাইটনেস কমিয়ে রাখুন। এতে ব্যাটারির ওপরে চাপ অনেকটাই কম পড়বে।

– প্রিয় ল্যাপটপের জন্য একটি উপযুক্ত ব্যাগ ব্যবহার করুন। বেশী চাপা বা আকারে ছোট ব্যাগ না হলেই ভালো।

– প্রসেসরের উপর চাপ কমাতে অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম/সফটওয়্যার গুলো বন্ধ করে দিন বা আনইন্সটল করুন।

– ব্যাটারির কানেক্টর এর লাইন মাঝে মাঝেই পরিষ্কার করুন। ধুলাবালি মুক্ত রাখার চেষ্টা করুন।

– দরকারি উইন্ডোগুলো ছাড়া অন্য উইন্ডোগুলো মিনিমাইজ বা বন্ধ রাখুন।

– সব সময় হার্ডডিস্ক থেকে মুভি ও গান চালাবেন। কারন ল্যাপটপের সিডি/ডিভিডি রমের ক্ষমতা কম হয়ে থাকে।

– শাট ডাউন এর পরিবর্তে হাইবারনেট অথবা স্লিপ অপশন ব্যবহার করতে পারেন।

– দরকার ছাড়া ব্লু-টুথ ও ওয়াই-ফাই কানেকশন বন্ধ রাখবেন। যখন দরকার কেবল তখনই চালু করুন।

– হার্ডডিস্ক ও সিপিইউ এর মেইটিনেন্স এর সময় অন্য সকল কাজ বন্ধ রাখুন।

– একবার ব্যাটারিতে চার্জ শেষ হলে সম্পূর্ণ চার্জ দিয়ে তবেই আবার ব্যবহার করুন।

– সপ্তাহে অন্তত একবার হার্ডডিস্ক ডিফ্রাগমেন্ট করুন।

– বিছানায় ল্যাপটপ যতটা সম্ভব কম ব্যবহার করুন।

– ব্যাগে রাখার সময় ব্যাটারির অংশটা নিচের দিকে দিয়ে রাখুন সবসময়। ব্যাটারির অংশটা ল্যাপটপের সবচাইতে ভারী অংশ বিধায় এই ব্যবস্থা।

– ব্যাটারি যদি কম ব্যবহার করা হয় বা একবারেই ব্যবহার না করা হলে এর আয়ু কমে যায়। এর থেকে বাঁচার জন্য সপ্তাহে ২ থেকে ৩ দিন ব্যাটারি দিয়ে ল্যাপটপ চালানোর চেষ্টা করুন। ব্যাটারির চার্জ শেষ হলে তবেই পুনরায় চার্জ দিন।

– পানি এবং আদ্রর্তা থেকে ল্যাপটপকে শত হাত দূরে রাখুন। ল্যাপটপ টেবিল পানির গ্লাস বা বোতল রাখবেন না। কোলে নিয়ে কাজ করার সময় খাওয়াদাওয়া না করাই ভালো। হাত ফসকে পড়ে গেলেই সব শেষ।

– সহজে বাতাস চলাচল করে এমন স্থানে ল্যাপটপ রেখে কাজ করবেন। এবং অবশ্যই ফ্যানের নিচে বা এসি রুমে ল্যাপটপ ব্যবহার করুন। রান্নাঘরে বা এর আশেপাশে কোথাও ল্যাপটপ নিবেন না।

– সরাসরি সূর্যের আলোতে ল্যাপটপ ব্যাবহার করবেন না। কারন এতে আপনার ল্যাপটপ খুব দ্রুত গরম হয়ে যে কোন ধরনের ক্ষতি হতে পারে। মনে রাখবেন, ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ যতটা সম্ভব শীতল স্থানে রেখে ব্যবহার করতে পারলেই ভালো। তাই ঘরের যে স্থানে কড়া রোদ পড়ে, সেইসব স্থানে ল্যাপটপ বা ডেক্সটপ ব্যবহার করবেন না।

ল্যাপটপের যত্ন তো করবেনই। সাথে নিজের কাজের ব্যাক আপ অবশ্যই রাখুন। যাতে ল্যাপটপের কিছু হলেও আপনার কাজ গুলো হারিয়ে না যায়।

Leave a Comment