এই নাগরিক জীবনে আপনি খুব ব্যস্ত মানুষ, ইনডোর প্ল্যান্ট গুলোর যত্ন নেয়ার একদমই সময় পান না! সময়ের অভাবে যত্ন না নেওয়ায় বিবর্ন হয়ে ওঠেছে আপনার শখের গৃহসজ্জার গাছ গুলো। তবে আপনার দরকার সহজ পরিচর্যার ইনডোর প্ল্যান্ট যা কম যত্নেও থাকবে সজীব। হ্যা, আপনি ঘরের শোভা বাড়াতে বেছে নিতে পারেন এমন কিছু গাছ যা অল্প সময়ে খুব সহজেই পরিচর্যা করা যায় আর অযত্ন অবহেলায়ও সজীব সতেজ থাকে সব সময়। এখানে আমরা এমন ৫ টি ইনডোর প্লান্টের কথা আপনাদের সামনে উপস্থাপন করব যা আপনার ব্যস্ত সময়ের খুব অল্পখানিই নেবে এর পরিচর্যায়।

জিজি প্লান্ট

সহজ পরিচর্যার ইন্ডোর প্লান্ট জিজি

জিজি প্লান্টের গাড় সবুজ বর্নের পাতা আপনাকে এক অনন্য প্রশান্তি এনে দেবে মুহুর্তেই। এটি এমনই কষ্ট সহিষ্ণু গাছ যাকে বলে একেবারে কৈ মাছের প্রাণ। অযত্ন আর অবহেলায়ও এর জীবন ধারনে কোন সমস্যা হয়না বললেই চল। প্রতিকূল পরিবেশে ঘরের শোভা বর্ধনকারি এই গাছ খুব সহজেই মানিয়ে নিয়ে বেড়ে উঠে। এই গাছের খুব একটা পানির প্রয়োজন হয়না তবে টবের মাটি বেশি শুকিয়ে গেলে অল্প পানি দিলেই চলে। খুব অল্প আলোতেও এই গাছ ভালো থাকে তাই ঘরের ভিতরে যে কোন স্থানে এটি স্থাপন করা যায়। আর ঘরের বায়ু দূষণমুক্ত রাখা সহ এলার্জির প্রভাব মুক্ত রাখার মত উপকারি গুণ সমূহ এটির গ্রহণ যোগ্যতা বাড়িয়ে দিয়েছে অনেক।

স্নেক প্লান্ট

সহজ পরিচর্যার ইন্ডোর স্নেক প্লান্ট

ফলার মত লম্বা পাতাযুক্ত স্নেক প্লান্ট দেখতে অনেকটা অন্যান্য পাতাবাহার গাছের মতই। গাছের পাতার আকৃতি অনেকটা সাপের মত প্যাঁচানো বলেই হয়ত লোকে একে স্নেক প্লান্ট বলে। তবে এর আরো একটি মজার নাম আছে, দেশের বাইরে অনেকেই একে মাদার ইন ল’স টাং বলে ডাকে (যার বাংলা প্রতিশব্দ শাশুড়ির জ্বিহবা)। এটি বাতাস দূষণমুক্ত রাখে এবং আলো অন্ধকার সংমিশ্রিত পরিবেশে খুব সহজেই মানিয়ে নেয়। এর জীবন ধারনের জন্য পানি খুব কমই লাগে শুধু মাটি বেশি শুকনো হয়ে গেলে অল্প পানি দিতে হয় আর সরাসরি গাছে পানি না দেয়াই উত্তম।

আরও পড়ুন – ঘর সাজাতে গাছ

এলোভেরা

সহজ পরিচর্যার ইন্ডোর প্লান্ট এলোভেরা

দেখতে সুন্দর ও ভেষজ গুন সম্পন্ন এলোভেরা গাছ ঘর সাজাতে অনেক জনপ্রিয়। এর অনেক ভেষজ গুণের একটি হলো পুরে যাওয়া স্থানে কাচা পাতার আঠালো রস লাগালে খুব দ্রুত পোড়ার যন্ত্রণা কমে আসে। এলোভেরা গাছের সঠিক বৃদ্ধির জন্য একে আলো যুক্ত স্থানে রাখা প্রয়োজন এবং প্রতি দুই সপ্তাহে একবার পানি দেয়াই যথেষ্ঠ। আপনার শোবার ঘরে, জানালার পাশে বা ঝুল বারান্দায় এই গাছের টব রাখতে পারেন।

ফিলোডেনড্রন

সহজ পরিচর্যার ইন্ডোর প্লান্ট ফিলোডেনড্রন

এটি খুব চমৎকার একটি গাছ যা আপনার গৃহসজ্জার জন্য সহজেই চাষযোগ্য আর এই জাতীয় গাছের যত্ন একেবারেই কম নিলেও গাছের কোন ক্ষতি হয়না। এর বিভিন্ন আকৃতির গাড় সবুজ বর্নের পাতার নান্দনিক বিন্যাস আর নজর কাড়া রপ ঘড়ের সৌন্দর্য বাড়িয়ে তুলে। ফিলোডেনড্রন গাছের অনেক প্রজাতি রয়েছে যেগুলো ঝুলানো ঝুড়িতে বা টবে লাগানো যায়। আপনার জানালর গ্রিলে বা অন্য কোন শক্ত খুটিতে এটি অনায়াসেই নিজেকে জড়িয়ে সুন্দর পরিবেশ তৈরি করবে।

জাদি প্লান্ট

সহজ পরিচর্যার ইন্ডোর জাদি প্লান্ট

এটি অনেক জনপ্রিয় একটি ইন্ডোর প্লান্ট যা বন্ধুত্ত ও সৌভাগ্যের প্রতিক হিসেবে পরিচিত। অনেকেই এই জাদি প্লান্ট কে টাকার গাছও বলে। এর পাতা গুলো দেখতে অনেক সুন্দর আর বিশেষ করে এর ছোট ছোট সাদা ও গোলাপি ফুল এই গাছের রুপ আরো বাড়িয়ে দেয় বহুগুণ। আপনার জাদি প্লান্টে প্রতিদিন পানি দেয়ার প্রয়োজন নেই যদি মাটি খুব বেশি শুকিয়ে যায় তখন অল্প পানি দিয়ে শুধু মাটি ভিজিয়ে দিলেই হবে। তবে গ্রীষ্মকালে সপ্তাহে একবার আর শীতকালে দুই সপ্তাহে একবার পানি দিলেই চলবে। ঘরের যে স্থানে পর্যাপ্ত আলো পরে এমন স্থানে, জানালার পাশে বা বারান্দায় জাদি প্লান্টের টব রাখুন তাতে এই গাছ খুব অনুকূল পরিবেশ পাবে।

আশাকরি আপনার ব্যাস্ত জীবনের অল্প খানি অবসর সময়ে সহজেই আর কম যত্নে চাষ করার মত এই সহজ পরিচর্যার ইন্ডোর প্লান্ট গুলো আপনাকে ঘর সাজাতে অনেক সহায়তা করবে। আর ঘর সাজানোর সাথে সাথে এই গাছ গুলো আপনার বাড়ির বাতাস রাখবে দূষণ মুক্ত ও নির্মল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *